Loading...
Monday, February 20, 2017

সানি লিওন এর অজানা সব তথ্য ও কাহিনী এ টু জেড

সানি লিওন কে নিয়ে কৌতুহলের শেষ নেই এতটাই যে বিকিনি লুকে তাঁর ফিল্মি পোস্টার হোক বা ফেসবুক, টুইটার অ্যাকাউন্টে তাঁর কোনও আপডেট মুহূর্তেই সব ভাইরাল! তাঁর সম্পর্কে খুঁটিনাটিও অজানা থাকার উপায় নেই তবে সে তো গেল সানি লিওনের কথা সানি থেকে সানি লিওন হয়ে ওঠার আগে কী ছিল সানি? কেমন ছিল তাঁর জীবন?

সানি লিওন এর জীবনী

সানি লিওন: করেনজিত কউর ভোহরা (জন্ম ১৩ মে, ১৯৮১) সানি লিওন নামে পরিচিত, একজন ভারতীয় বংশোদ্ভূত কানাডীয় এবং আমেরিকান নারী-ব্যবসায়ী, মডেল এবং প্রাক্তন পর্ণোতারকা।

সানি লিওন নামটি শুনলেই নীল জগতের ভাবনা মাথায় চলে আসে। কিন্তু কখনও কি ভেবে দেখেছেন, এই নীল জগতে তার আগমন ঘটে কীভাবে? কেমন ছিল সেই জগতটা। চলুন জেনে নিই।
 
সানি লিওন
সানি লিওন কিশোর বয়সে যেমনটা ছিলেন
নীল জগত এমন একটি জগত যেখানে স্বেচ্ছায় কখনও পা রাখেন না কেউই। বহু তরুণী ভাগ্যের দোষে নীল দুনিয়ায় ঢুকতে বাধ্য হন। তবে সানি লিওনের ক্ষেত্রে বিষয়টা একেবারেই ভিন্ন। কারো প্ররোচনা কিংবা কোনো পরিস্থিতির চাপে পরে নয়, নিজের ইচ্ছাতেই নীল দুনিয়ায় পা রেখেছিলেন তিনি। তাই এ জন্য কোনো আক্ষেপও নেই সানির।

কি অবাক হলেন তো? হ্যাঁ বেশীর ভাগ পর্ণ তারকা বাধ্য হয়েই এই জগতে পা রাখলেও সানি লিওন নিজ ইচ্ছা থেকেই পা রাখেন। তবে এই পর্ণ তারকা নীল দুনিয়া থেকে বেরিয়ে এসে বলিউডে পা রাখা জনপ্রিয় তারকাতেই পরিণত হয়েছেন। ২০০৩ সালে তিনি পেন্টহাউস বর্ষসেরা পেটস এবং ভিভিড এন্টারটেনমেন্টের একজন চুক্তিতারকা ছিলেন। তিনি ম্যাক্সিম বিশ্বেসেরা ১০ পর্ণোতারকার একজন হিসেবে নির্বাচিত হন ২০১০ সালে। তিনি স্বাধীন মূলধারার চলচ্চিত্র এবং টেলিভিশন অনুষ্ঠানে ভূমিকা পালন করেছেন। পরবর্তীতে বলিউডে আত্মপ্রকাশ ঘটান পূজা ভাটের জিসম ২ (২০১২) যৌনাবেদনময়ী থ্রিলার চলচ্চিত্রে এবং বর্তমানে কাজ করেন হিন্দি চলচ্চিত্রে।



 সুপার গার্ল (ভিডিও)

প্রাথমিক জীবন :
 
লিওন সার্নিয়া, অন্টারিও শহরে শিখ পাঞ্জাবি বাবা-মার ঘরে জন্ম নেন। তাঁর বাবা তিব্বতে জন্মগ্রহণ করেন এবং দিল্লিতে বেড়ে ওঠেন। আর তাঁর মা (২০০৮ সালে মারা যান) ছিলেন সিরমাউর, হিমাচল প্রদেশের মেয়ে। তরুণী থাকাকালীন সময়ে তিনি খুব খেলাধুলা-প্রেমী ছিলেন এবং ছেলেদের সাথে রাস্তায় হকিও খেলতেন।

যেহেতু তাঁর পরিবার শিখ ছিলো, এ কারণে পাবলিক বিদ্যালয়ে যাওয়ার বিষয়ে অনিরাপদ বোধ করতো তাঁর পরিবার। ১৬ বছর বয়সে অন্য বিদ্যালয়ের একটি বাস্কেটবল খেলোয়াড়ের সাথে তিনি কুমারীত্ব হারান এবং ১৮ বছর বয়সে তাঁর উভকামিতা আবিষ্কৃত হয়। ১৩ বছর বয়সে তাঁর পরিবার ফোর্ট গ্রাটিয়ট, মিশিগান চলে আসেন। পরবর্তীতে এক বছর পর লেক ফরেস্ট ক্যালিফর্নিয়ায় স্থানান্তরিত হন ।

কর্মজীবন :

পর্নো শিল্পে কাজ করার পূর্বে, তিনি প্রথমে একটি জার্মান বেকারিতে কাজ করতেন। এরপর জিফি লুবে এবং পরবর্তীতে একটি ট্যাক্স এবং রিটায়ারমেন্ট ফার্মে কাজ করেন। ২০০২ সালে এডাল্ট এন্টারটেনমেন্ট এক্সপোতে তাঁর প্রথমদিকের প্রচারমূলক উপস্থিতি।

অরেঞ্জ কাউন্টিতে পিডিঅ্যাট্রিক নার্স হিসেবে অধ্যয়নকালে জন স্টিভেনসের সাথে তাঁর পরিচয় করিয়ে দেন এক বহিরাগত নৃত্যশিল্পী সহপাঠী। স্টিভেনস যিনি একজন এজেন্ট ছিলেন, পরবর্তীতে পেন্টহাউস ম্যাগাজিনের আলোকচিত্রী জে অ্যালেনের সাথে লিয়নের পরিচয় করিয়ে দেন। তাঁর প্রাপ্তবয়স্ক কর্মজীবনের জন্য একটি নাম ঠিক করতে, তিনি আসল নাম হিসেবে সানি নামটি উল্লেখ করেন এবং লিয়ন নামটি ঠিক করেন পেন্টহাউস ম্যাগাজিনের সাবেক মালিকবব গুচ্চিওনে। পেন্টহাউস ম্যাগাজিনের জন্য পেন্টহাউস পেট অব দ্য মান্থ হিসেবে মার্চ ২০০১ সংখ্যার জন্যে ক্যামেরার সামনে দাঁড়ান। পরবর্তীতে হলিডে ফিচারে হাস্টলার হানি হিসেবে হাস্টলার ম্যাগাজিনের ২০০১ সংস্করণে অনেকগুলো ম্যাগাজিনের কাভার গার্ল হবার সুযোগ পান। এর মধ্যে রয়েছে, চেরি, মায়েস্টিকু ম্যাগাজিন, হাই সোসাইটি, শয়ান্ক, এভিএন অনলাইন, লেগ ওয়ার্ল্ড, ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল এবং লোরিডার। এরপর তাঁর অনলাইন ক্রেডিটে মডএফএক্স মডেলে হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হন সুসে রান্ডাল, কেন মার্কাস এবং ম্যাক এ্যন্ড বাম্বেল। তিনি সচিত্র ক্রেডিটে আদ্রিয়ানা সেজ, জেনা জেমসন, জেলেনা জেনসেন এবং আরিয়া জিওভান্নি ছাড়াও বিভিন্ন তারকাদের সাথে কাজ করার সুযোগ পান।

২০০৩ সাল সানির ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট শুরু হয়। তিনি নির্বাচিত হন ‘পেন্টহাউস পেট’। এ বছরই পর্ণো ছবির অন্যতম সেরা  

নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভিভিড ইন্টারটেইনমেন্টের সঙ্গে তিন বছরের চুক্তিতে আবদ্ধ হন। তবে চুক্তির শর্ত অনুসারে কেবল লেসবিয়ান চরিত্রেই অভিনয় করতে থাকেন তিনি। সানি অভিনীত প্রথম ছবিটি বের হয় ‘সানি’ নামেই ২০০৫ সালের ডিসেম্বর মাসে। ভিভিড এন্টারটেইনমেন্টের ব্যানারেই বের হয় পরের ছবিটিও। নাম ‘ভার্চুয়াল ভিভিড গার্ল সানি লিওন’। এভাবে কোনো অভিনেত্রীর নামে ছবি প্রকাশের ঘটনা ভিভিডের ইতিহাসে এটাই প্রথম। এখানে তার সঙ্গে আরও অভিনয় করেন মিকালা মেনডেজ এবং ডেইজি ম্যারি। এই ছবিটি তাকে এনে দেয় ‘এভিএন’ সম্মাননা।

ব্রাজিলে রিলিজ হয় ‘সানি ইন ব্রাজিল’এবং ‘দ্য সানি এক্সপেরিমেন্ট’। ছবিগুলো ২০০৭ সালে বাজারে রিলিজ করে ভিভিড।

২০০৭ সালের মার্চ মাসে আবারও সানির সঙ্গে চুক্তি করে ভিভিড। চুক্তির আওতায় ছয়টি ছবিতে অভিনয় করেন সানি লিওন। আর এবারই প্রথম কোনো পুরুষ অভিনেতার সঙ্গে কাজ করতে সম্মতি জানান তিনি। সানির বাগদত্তা ম্যাট এরিকসন এই ছবিতে তার  কো-আর্টিস্টের ভূমিকায় অভিনয় করেন। পুরুষের সঙ্গে প্রথম যে ছবিটিতে তিনি অভিনয় করেন সানি সেটির নাম ‘সানি লাভস ম্যাট’।  ছবিটি তাকে ২০০৯ সালের সেরা নারী অভিনেত্রীর পুরষ্কার এনে দেয়। একসঙ্গে কয়েকটি ছবিতে অভিনয়ের পর সানি উপলব্ধি করেন ম্যাটের সঙ্গে টানা অভিনয় বাজারদর কমিয়ে দিচ্ছে। এবার তিনি অন্য অভিনেতাদের সঙ্গেও অভিনয় করতে শুরু করেন। যাদের মধ্যে রয়েছেন টমি গান, চার্লস ডেরা জেমস ডিন প্রমুখ।

ব্যক্তিগত জীবন:

জুন ২০০৬ সালে, লিয়ন একজন আমেরিকান নাগরিক হয়ে ওঠেন। কিন্তু কানাডায় দ্বৈত নাগরিক হিসেবে থাকার পরিকল্পনা করেন। এপ্রিল ১৪, ২০১২ সালে, লিওন দ্য নিউ ইন্ডয়িান এক্সপ্রেস সাক্ষাত্কারে নিজেকে ভারতের অধিবাসী হিসেবে ঘোষণা করেন। তিনি ব্যাখ্যা করেন যে তিনি ভারতের বৈদেশিক নাগরিক ছিলেন এবং তাঁর বাবা ভারতে বসবাস করতেন, আর তিনি বিদেশী নাগরিকত্ব পাওয়ারও যোগ্য ছিলেন।
 
সানি লিওন নিজেরশরীরের রহস্য ফাঁস করলেন


এবার নিজের শরীরের রহস্য ফাঁস করলেন সানি লিওন শিল্পা শেঠি, বিপাশা বসুদের মত সম্প্রতি তাঁর ওয়ার্কআউট ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে সেই ওয়ার্কআউট ভিডিওতে এক গানের তালে ঘাম ঝরিয়েছেন সানি দর্শন রাভাল রিমি নিকুইয়ের গলায় এই গানের তালে তালে ওয়ার্কআউট করছেন এই ইন্দো-কানাডিয়ান পর্নস্টার তথা বলিউড অভিনেত্রী গানের নাম দেওয়া হয়েছেসুপার হট সানি মর্নিংস

সানি তাঁর টুইটারে এই ভিডিও- গানের লিঙ্ক শেয়ার করেছেন। এদিকে, মুক্তির অপেক্ষায় সানির নতুন সেক্স কমেডি সিনেমামস্তিজাদে সানি বলছেন, তার হাতে এখন বলিউডের অন্তত দশটা ছবির অফার। ২০১৬ সালে সানি অভিনীত আরও অন্তত তিনটি ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা

সানি লিওন যে কারণে সেক্স না করে থাকতে পারেন না

ঢাকা : জ্যাকপট সিনেমাটি বলিউডের অভিনেত্রী সানি লিওনকে সৌভাগ্যবান কিছু এনে দিতে পারেনি তবে তিনি তার তৃতীয় সিনেমারাগিনি এমএমএস নিয়ে খুবই আশাবাদী এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ইন্ডিয়া টুডে

সানি বলেন, তিনি ধীরে ধীরে বলিউডের নানা বিষয় শিখছেন। আর সেখানে আরো গ্রহণযোগ্য হওয়ার আশা করছেন। লক্ষে গত দুই বছর তার জীবনে সবচেয়ে ব্যস্ত সময় কাটল

সানি জানান, বলিউডে কাজ শুরুর পর গত দুই বছরের মতো ব্যস্ত সময় তার জীবনে আর আসেনি। এতো পরিশ্রমও তিনি আগে করেননি

সম্প্রতি এক প্রশ্নের উত্তরে সানি বলেন, ‘মানুষ আমাকে একটা নির্দিষ্ট পথে আশা করে এবং তারা আমার সঙ্গে দেখা করলে বুঝতে পারে যে, আমি তেমন নই। সেক্সি, হ্যাঁ! এটা সবসময়ই হয়। আমি চেষ্টা করলেও সেক্স থেকে নিজেকে বিরত রাখতে পারি না।

সানি আরো বলেন, ‘অনেক অভিনেতা আমার সঙ্গে অভিনয় করতে ভয় পান বলে জানান। কারণ তাদের স্ত্রী বা তেমন কেউ আছে। আর আমি তাদের স্ত্রীদের বলতে চাই (হাসি), আমি তোমাদের স্বামীকে চাই না। আমার একটা আছে। আমি তাকে ভালোবাসি
 

নীল সিনেমার তারকা সানি লিওন বলিউডে নিজের একটা অবস্থান করে নিয়েছেন। তারই ধারাবাহিকতায় সুপারস্টার শাহরুখের সঙ্গে কাজের সুযোগ মিলেছে 'রইস' সিনেমায়

এরই মধ্যে সিনেমাটি বক্স অফিসে সাড়া ফেলেছে। শাহরুখ তো দারুণ অভিনয় করেছেন। সেই সঙ্গে সিনেমায় উজ্জ্বলভাবে ধরা দিয়েছেন সানিও। সবমিলে ফুরফুরে মেজাজে রয়েছেন বলিউড তারকা।
 
আর কিছুদিন পর আসছে ভ্যালেন্টাইনস ডে। সানির প্রথম প্রেম প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি জানালেন, 'ছোটবেলায় অনেকটা টমবয় ছিলেন তিনি। হাইস্কুলে পড়ার সময় প্রথম প্রেমে পড়েন তিনি। তখন নাকি সেই প্রেমিক চিঠি লিখে তার বইয়ের ভাঁজে রেখে দিত। কখনো ব্যাগেও ঢুকিয়ে দিত ওই চিঠি। রোমিও জুলিয়েট দেখতে গিয়ে প্রথম চুমু খেয়েছিলেন তাকেই

সানি লিওন যে কারণে প্রথম প্রেমিককে হারান !

নীল সিনেমার তারকা সানি লিওন বলিউডে নিজের একটা অবস্থান করে নিয়েছেন তারই ধারাবাহিকতায় সুপারস্টার শাহরুখের সঙ্গে কাজের সুযোগ মিলেছে 'রইস' সিনেমায়

এরই মধ্যে সিনেমাটি বক্স অফিসে সাড়া ফেলেছে। শাহরুখ তো দারুণ অভিনয় করেছেন। সেই সঙ্গে সিনেমায় উজ্জ্বলভাবে ধরা দিয়েছেন সানিও। সবমিলে ফুরফুরে মেজাজে রয়েছেন বলিউড তারকা

আর কিছুদিন পর আসছে ভ্যালেন্টাইনস ডে। সানির প্রথম প্রেম প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি জানালেন, 'ছোটবেলায় অনেকটা টমবয় ছিলেন তিনি। হাইস্কুলে পড়ার সময় প্রথম প্রেমে পড়েন তিনি। তখন নাকি সেই প্রেমিক চিঠি লিখে তার বইয়ের ভাঁজে রেখে দিত। কখনো ব্যাগেও ঢুকিয়ে দিত ওই চিঠি। রোমিও জুলিয়েট দেখতে গিয়ে প্রথম চুমু খেয়েছিলেন তাকেই

আর প্রেম করে ধরা পড়েননি এমন লোকের সংখ্যা খুব কমই সানিও তার ব্যতিক্রম নন আর পাঁচজনের মতো ধরা পড়েন জানালেন, বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখে ফেলেছিলেন স্বয়ং সানির বাবা! তার পরপরই নাকি মিশিগান থেকে ক্যালিফোর্নিয়ায় চলে যান ফ্যামিলিসহ আর সানিও তার জীবনের প্রথম প্রেম হারিয়ে ফেলেন সেখানেই

সানি লিওন জীবনে আর কোন চাওয়াই অপূর্ণ রইলো না

এক জীবনে আর কোন চাওয়াই অপূর্ণ রইলো না সাবেক পর্ণস্টার সানির ----------------------

বিনোদন ফিচার – জীবনে আর বুঝি কোন কিছুই চাওয়ার বাকি রইলোনা আলোচিত পর্নস্টার সানি লিওনির ! বলিউড পাড়ায় সানি লিওনি নামের এই পর্নস্টার দারুণ হিট হলেও প্রথম সারির অনেক অভিনেতাই মুখে না বললেও সানির সাথে অভিনয় করতে নাক যে সিটকাতেন তা কারো অজানা নয়। তবে এতদিন এমনটা হলেও এবার সময় বুঝি বদলালো।

নিজের আখের আর অপুর্নতা পূরণে তাই চতুর সানি হয়তো বুঝে শুনেই টোপ ফেলেন বলিউড বাদশাহর দিকেই। তবে সানি টোপ ফেললেও বলিউড বাদশাও যে এত দ্রুতই টোপ গিলবেন আর সত্যিই এমনটা হবে তা শাহরুখের অগনিত ভক্তরাও আশা করেনি হয়তো এতকাল।

সাবেক এই পর্নস্টার বর্তমানে অভিনেত্রী সানি লিওন বিভিন্ন সময় নানা কারণে খবরের শিরোনামে এসেছেন। বছর দুএক আগে এক অনুষ্ঠানে গিয়ে সানি জানিয়েছিলেন, বলিউডের তিন খান অর্থাৎ শাহরুখ, সালমান ও আমিরের সঙ্গে অভিনয় করতে আগ্রহী এই পর্নস্টার। তারপর থেকেই সুপ্ত ইচ্ছে বুকে চেপে মিশন শুরু। শেষ অবধি সফলও হলেন তিনি ।

এবার চমকপ্রদ খবর হলো শাহরুখ খানের সঙ্গে শুধু সাদামাটা অভিনয় নয় অন্তরঙ্গ নাচেরও সুযোগ পাচ্ছেন সানি লিওন! শাহরুখের আসন্ন ছবি ‘রইস’এর একটি আইটেম গানে কোমর দোলাবেন সানি। শোনা গিয়েছে, ‘কুরবানি’ ছবির ‘লায়লা ও লায়লা’ গানটি ব্যবহার করা হবে ‘রইস’-এ। এমনকী সানির সঙ্গে নাচের দৃশ্যেও থাকবেন বলিউড বাদশাকেও।

এরপর হয়তো বাকি খানদের সাথে সহ অনেক বড় মাপের অভিনেতাদেরও আর নাক সিটকাবার কারণ থাকছেনা সাবেক এই পর্নস্টারকে নিয়ে ।

বলিউড ‘বাদশা’ শাহরুখ খান বর্তমানে ‘রাইস’ ছবির শুটিংয়ে ব্যস্ত। এ ছবিতে তাঁর বিপরীতে অভিনয় করছেন পাকিস্তানের অভিনেত্রী মাহিরা। এখন ‘রাইস’ ছবির শিল্পী তালিকায় যুক্ত হলো সানি লিওনের নামও।

সব প্ল্যান কমপ্লিট। শুধু অনুমতির অপেক্ষা। দু’তরফ থেকে অনুমতি মিললেই শুটিং হয়ে যাবে। বি-টাউনের একটা বড় অংশের মতে, এমন অফার হাতছাড়া করবেন না ‘বেবি ডল’। আফটার অল ফিল্মি ইতিহাসে শাহরুখের সঙ্গে জুড়ে যাবে তাঁর নাম।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ‘মুম্বাই মিরর’ এর একটি সংবাদ সুত্রে জানা গেছে, আগামী মাসে ‘লায়লা ও লায়লা’ গানের শুটিংয়ে সানি লিওন ও শাহরুখ খান অংশ নেবেন। একটানা দুই দিন চলবে সানি ও শাহরুখের শুটিং।

১৯৮০ সালে মুক্তি পাওয়া ‘কোরবানি’ ছবির ‘লায়লা ও লায়লা’ গানে দেখা গিয়েছিল জিনাত আমানকে। জানা গেছে, নতুন গানে জিনাত আমানের মতো সাজ পোশাকে দেখা যাবে সানি লিওনকে।

‘রাইস’ ছবির প্রযোজক রিতেশ সিধওয়ানি ও ফারহান আখতার এরই মধ্যে ১৯৮০ সালে তৈরি মূল গানটির শিল্পী ও সুরকারের কাছ থেকে গানটি ব্যবহারের অনুমতি নিয়েছেন। এখন শুধু শুটিংয়ের অপেক্ষা, এরপর বড়পর্দায় শাহরুখ খান ও সানি লিওনের রসায়ন দেখার অপেক্ষা।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি বলিউডের গায়ক অরিজিত সিং একটি লাইভ অনুষ্ঠানে বলেছিলেন নিজের গাওয়া কোন গানে সানি লিওনকে দেখতে চান না তিনি । সানি লিওনের প্রতি অনীহার কথা স্পস্ট জানিয়ে দেন এই তারকা। মুম্বাইয়ে অরিজিৎ সিংয়ের লাইভ পারফরম্যান্সে গান গাওয়ার মাঝে শ্রোতাদের কাছ থেকে অনুরোধ আসে ‘জ্যাকপট’ ছবির ‘কাভি জো বাদল বারষে’ গানটি গাওয়ার জন্য। 

গানটি শুরু করার আগে অরিজিৎ জানান, ‘এত ভাল গান’ খুব মন দিয়ে গেয়েছিলাম। আমার বেশ পছন্দের গান। কিন্তু কষ্টটা অন্য জায়গায়। যখনই এই গানটার ভিডিওটি চোখে পড়ে, তখন খারাপ লাগাটা বেড়ে যায়। আই উইশ গানটাতে সানি লিওন যদি না থাকত।’ শুধু তাই নয়, পরিচালকদের অরিজিৎ অনুরোধ করেছেন তাঁর গানে যেন কখনই সানিকে না নেওয়া হয়।

সানি লিওন কনডম ব্যবহার নিয়ে যা বললেন

বলিউড ডিভা, নীল ছবির 'প্রাক্তন' তারকা সানি লিওনকে একটি বহুল প্রচলিত কনডম প্রস্তুতকারক সংস্থার বিজ্ঞাপনে দেখেছেন অনেকেই। কখনও সমুদ্র সৈকতের বালিতে সানি যেন সমুদ্রের ঢেউ, আর সে ঢেউ যেন পুরুষের সুপ্ত বাসনার ওপর এক একটা ধাক্কা! বিজ্ঞাপন নিয়ে আপত্তিও কম হয়নি। 

তবে কনডম ব্যবহার করা যে সচেতনতা ও সতর্কতার বিষয়, এই সম্পর্কে কোনও প্রকার বিতর্ক কেউ কখনও আজ পর্যন্ত তৈরি করেননি। হলিউড অভিনেতা চার্লি শিন থেকে ভারতীয় তারকা সানি, কনডম ব্যবহারে কোনও কুণ্ঠাবোধ না রেখেই উদার হয়েছেন তারা। 

সানি মনে করেন, "যে পুরুষরা সতর্কতাকে সবথেকে বেশি গুরুত্ব দেন, মহিলারা সেই পুরুষদের প্রতি সবথেকে বেশি আকর্ষিত হন"। যা, যৌনতায় কনডম ব্যবহার করার উপদেশ বলেই মনে করছে সানি ফ্যানরা।      

শাড়িতেই ঝড় তুলেছেন নীল-সুন্দরী সানি লিওন

বরাবরই সানিকে আমরা খুল্লামখুল্লা পোশাকে দেখতে অভ্যস্ত। সেই সানি যদি বলে শাড়ি আমার সবথেকে পছন্দের পোশাক, তাহলে ব্যাপারটা অনেকটা ‘ভূতের মুখে রাম নাম জপের’ মত শোনাবে। না, তবে সানি তাঁর পছন্দের পোশাক শাড়ি এটা দাবি করেন নি। তবে বারো হাতে সানিকে দেখার সখ কোন পুরুষটির নেই বলুনতো? সেইকারণেই তো ভারতীয় নারীর পোশাকে ক্যামেরা বন্ধী হয়েছেন ‘স্বপ্নকি রানি সানি’। আজকের এই গ্যালারিতে সাজানো হল শাড়ি পরনে সানির মনমোহিনী কিছু ছবি দিয়ে।

নীল ছবির নায়িকা সানি লিওন। বলিউডে তাঁর প্রবেশ পূজা ভাটের হাত ধরে ‘জিসম-টু’ সিনেমায়। প্রথম ছবিতেই অভিনয়ে,রূপে,আবেদনে সিনেপ্রমেীদের নজর কেড়েছেন তিনি। এই ছবির ফটোশুটের জন্য প্রথম শাড়ি পরে ফ্রেম বন্ধী হন এই পনসটার।

এরপর বিভিন্ন ম্যাগাজিনের ফটোশুটে শরীরে শাড়ি জড়িয়ে ক্যামেরার সামনে আসেন লিওনি। এই রকমই এক শাড়ির ফটোশুটে লাল শাড়ি পরে পুরুষ হৃদয়ে ঝড় তোলে তিনি। খোঁজ নিলে দেখা যাবে অনেক ছেলেরাই তাদের ঘরের দেওয়ালে ঝুলিয়ে রেখেছেন সানির শাড়ি পরা এই ছবিটি।

তবে চরিত্রের প্রয়োজনে সানিকে বিকিনি পড়ে পর্দার সামনে আসতে হলেও তিনি কিন্তু বেশ সাবলীল শাড়িতে। একতা কাপুরের ছবি ‘রাগিনি-এমএমএস-২’-এর প্রচারে তাঁকে বেশ কয়েকবার দেখা গেছে শাড়ি পরে জনসমক্ষে হাজির হতে।

ঋতু কুমার , বিক্রম পন্ডিত মত মুম্বাইয়ের নামি নামি ডিজাইনাররা শাড়ির মডেল হিসাবে এখন অনেকেই বেছে নিচ্ছেন এই পর্নস্টারকে। এছাড়া বিভিন্ন অনলাইন পোশাক সংস্থার মডেল হিসাবে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে শাড়ি পরে সানি।

সম্প্রতি গিরিক আমনের এক মিউজিক অ্যালবাম ‘শাড়ি বালি গার্ল’ এর ভিডিও শ্যুট করেছেন সানি। ভিডিওটিতে অসম্ভব আবেদনময়ী রূপে তিনি ধরা দিয়েছেন। লাল ও সাদা শাড়িতে সানি রীতিমত তুফান তুলেছেন পর্দায়।

সানি লিওন (ভিডিও) সেক্স করতে করতে আমি ক্লান্ত –

সানি লিওন হচ্ছেন পর্ণ জগতের এক আলোড়ন জাগানো তারকা ।খুব বেশিদিন হয়নি পা রেখেছেন বলিউডে। কিন্তু বলিউডেও হট ও হিট এই তারকা। নামটা আশা করি বলে দিতে হবে না। হ্যাঁ তিনি বেবি ডল সানি লিওন। কীভাবে পা রাখা পর্ণ ছবি বা সেক্স দুনিয়ায়? কীভাবে নীল দুনিয়া থেকে বেরিয়ে এসে পা জমালেন বলিউডে? সানির গল্পটা জানালেন সানি নিজের মুখেই।

সাধারণত, পর্ণ ছবির জগত এমন একটি জায়গা যেখানে জোর করে কাউকে নিয়ে যাওয়া হয়। ভাগ্যের ফেরে বা পরিস্থিতির চাপে পর্ণ বা সেক্স দুনিয়ায় ঢুকতে বাধ্য হন বহু তরুণী। তবে কি সানির ক্ষেত্রেও তাই ঘটেছিল? নাকি স্বেচ্ছায় এসেছিলেন তিনি? এখনো কি পর্ণ ছবির সেই অশ্লীল দুনিয়াকে ভালোবাসেন সানি?

সানির ক্ষেত্রে কিন্তু বিষয়টা একদমই আলাদা। কারোর চাপে নয়, নিজের ইচ্ছাতেই পর্ণ বা সেক্স দুনিয়ায় পা রেখেছিলেন সানি। আর তার জন্য কোনও আক্ষেপও তাঁর নেই।

সম্প্রতি নিজের বাসনার কথা জানিয়ে সবাইকে আরও একবার চমকে দিলেন সানি। জানালেন, নিজের একটি সেক্স বিনোদনের প্রযোজনা সংস্থা খুলতে চান তিনি। “আমি আমার নিজস্ব প্রযোজনা সংস্থা খুলতে চাই যাতে নিজের ও অন্যদের চিত্রনাট্য নিয়ে পরিচালনা, প্রযোজনা করতে পারি। ব্যবসায়িক দিক থেকে ভাবলে এই প্রকল্পটি অত্যন্ত যুক্তিযুক্ত।”

পর্ণ ছবির জগত যদি এতই পছন্দ হয়, তাহলে ছেড়ে বেরিয়ে এলেন কেন? প্রশ্নের উত্তরে সানি জানিয়েছেন ২০১১ সালে একটি গুগল সার্চ তাঁর জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছে। গুগল ঘাটতে ঘাটতে হঠাৎই তিনি দেখতে পান বিগ বস-এর মুম্বইয়ের প্রোডাকশন দল নীল ছবির অভিনেত্রী খুঁজছেন প্রতিযোগী হিসাবে। “সেটা আমার কাছে একটা স্বর্ণালী সুযোগ ছিল। আমি ও আমার স্বামী ওরফে ম্যানেজার ড্যানিয়েল ওয়েবারের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিলাম বিনোদনের বাজার ধরতে গেলে বিগ বস একটা ভাল প্ল্যাটফর্ম হতে পারে। ব্যস চলে এলাম।” হাসতে হাসতে জানালেন সানি।


রীরের রহস্য ফাঁস করলেন সানি লিওন (ভিডিও)
শরীরের রহস্য ফাঁস করলেন সানি লিওন (ভিডিও)

0 comments:

Post a Comment

 
TOP